রাজাকার ও খুনীর মদদ দাতাদের রুখে দিতে ভোটারদের নৌকার পক্ষে ঐক্যবদ্ধ করুন: রেজাউল করিম চৌধুরী

চিটাগাং মেইল: হালিশহর থানা ছাত্রলীগের উদ্যাগে ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আলোচনা সভা, শীতবস্ত্র বিতরন ও বঙ্গবন্ধুর আবক্ষ ভাষ্কর্য ‘বঙ্গ স্পন্দন’ উম্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা এম. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, একটি গোষ্ঠী ধর্মকে পুঁজি করে দেশে অরাজক পরিস্থিতি তৈরী করে ফায়দা লুটতে চায়। তারা নিজের মত করে ধর্মকে উপস্থাপন করে জনমনে বিভ্রান্তি তৈরী করে নিজেদের আঁখের গোছানোর অপচেষ্টা করে। তারা তাদের পূর্ব পুরুষের রেখে যাওয়া ব্যবসা হিসেবে ইচ্ছামত ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে যাচ্ছে। একাত্তরে তারা এবং তাদের পূর্ব পুরুষেরা পাকিস্তানীদের দোসর হয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরোধিতা করেছিল। পাকিস্তানী হানাদারদের খুশী করতে তারা অসংখ্য বাঙালিকে হত্যা করেছিল, বাড়ী ঘর লুট করেছিল, গ্রামের পর গ্রাম জ্বালিয়ে দিয়েছিল এবং মা বোনেদের গনিমতের মাল বলে পাক হানাদারদের হাতে তুলে দিয়েছিল। বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে বাঙালি সশস্ত্র স্বাধীনতা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে পাক হানাদারদের পরাজিত করে বাংলার স্বাধীনতা ছিনিয়ে এনেছিল। তাই তারা বঙ্গবন্ধুর নাম শুনে ও প্রতিকৃতি দেখে তাদের গায়ে জ্বলন ধরে।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে বিশ্বসভায় বাংলাদেশের মাথা উঁচু করে দাঁড়ানো দেখে তারা বিচলিত। তাই তারা প্রগতির ধারাকে স্তব্দ করে দেয়ার লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নেমেছে। পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় এসে স্বৈরাচারের খোলস থেকে জন্ম নেয়া ধোকাবাজ একটি দল তাদের প্রচ্ছন্ন সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে এবং তাদের পেছনে অর্থ লগ্নি করছে। পাকিস্তানের দোসরদের মদদদাতা ঐ দল মুখোশ পরে জনতার দুয়ারে ভোট চাইতে আসে। তাদের মুখোশের আড়ালে লুকিয়ে থাকা খুনী, স্বৈরাচারী ও দালালী চরিত্র মানুষ জেনে গেছে। তারা পাকিস্তান ও বাংলাদেশ বিরোধী বিদেশীদের দালাল। মানুষ তাদের বার বার প্রত্যাখ্যান করেছে। আগামী ২৭ তারিখ অনুষ্ঠিতব্য চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনেও এই চক্রকে প্রতিহত করতে ভোটারদের নৌকার পক্ষে ঐক্যবদ্ধ করে তুলতে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের সকল স্তরের নেতাকর্মীদের জোর তৎপরতা চালাতে হবে।

৪ ডিসেম্বর সোমবার বিকালে অনুষ্ঠিত সভায় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য আরশেদুল আলম বাচ্চু উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান আলোচক ছিলেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা এরশাদুল আমীন, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ১১নং দক্ষিন কাট্টলী ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি ও কাউন্সিলর পদপ্রার্থী আলহাজ্ব অধ্যাপক ইসমাইল, ২৬নং উত্তর হালিশহর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আবেদ মনসুর চৌধুরী, হালিশহর থানা আওয়ামীলীগ নেতা সাইদুল হক সাইদ, হালিশহর থানা আওয়ামীলীগ নেতা আশফাকুল আলম।

চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক গোলাম সামদানী জনির সভাপতিত্বে হালিশহর থানা ছাত্রলীগ নেতা ইমরান খান আরভির সঞ্চালনার অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন হালিশহর থানা ছাত্রলীগ নেতা এ কে আরিফ, নওশাদ আলি, এ আর অপু, মোঃ আকিব, সাব্বির আহমেদ শামিম, ইসমাইল হোসেন, কাজী মাহমুদ হাসান রনি, মোহাম্মাদ সাজিদ, সাফায়েত হোসেন প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*